বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২

কোরিয়ান মেয়েদের মতো ত্বক পাওয়ার প্রাকৃতিক উপায়

শেয়ার করুন

কোরিয়ান মেয়েরা তাদের গ্লাসের মতো চকচকে ও নিখুঁত ত্বকের জন্য পরিচিত। গ্লাস স্কিন হলো একটি স্কিনকেয়ার ধারণা যেখানে ত্বক উজ্জ্বল দেখায় এবং স্বচ্ছতার কারণে কাঁচের মতো প্রতিফলিত হয়। এটি একটি জনপ্রিয় কোরিয়ান সৌন্দর্যের উন্মাদনা যা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। গ্লাস স্কিনকে পরিষ্কার বর্ণ, মসৃণ গঠন এবং মোটা ত্বক হিসাবে সংজ্ঞায়িত করা হয়। কোরিয়ানদের মতো গ্লাস স্কিন পেতে চাইলে এই প্রাকৃতিক উপায়গুলো বেছে নিতে পারেন-

অ্যালোভেরার ব্যবহার
অ্যালোভেরার চমৎকার প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য দীর্ঘদিন ধরে ত্বকের উন্নতির জন্য ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের জন্য দারুণ কার্যকরী এই অ্যালোভেরা। এটি ত্বকের দাগ দূর করার পাশাপাশি ত্বককে ভেতর থেকে আর্দ্র রাখতেও কাজ করে। একটি অ্যালোভেরা পাতা নিয়ে এর অর্ধেকটা থেকে শাঁস বের করে নিন। এরপর সেই শাঁসটুকু মুখে ব্যবহার করে এক ঘণ্টার মতো অপেক্ষা করুন। এবার হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

রোজশিপ তেল
আপনি যদি প্রাকৃতিক উপায়ে গ্লাস স্কিন পেতে চান তবে রোজশিপ তেল ব্যবহার শুরু করুন। রোজশিপ হলো গোলাপের ফল। বিভিন্ন অসুখের চিকিৎসায় এবং ত্বকের সমস্যা এটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। রোজশিপ তেলে উচ্চ ওমেগা -৩, ভিটামিন ই এবং ভিটামিন এ রয়েছে, এগুলো সবই দাগ দূর করতে সাহায্য করে। এই তেল সব ধরনের ত্বকের মানুষের জন্য উপযোগী। প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে আপনার মুখে ৩-৪ ফোঁটা রোজশিপ অয়েল লাগান এবং সকালে ধুয়ে ফেলুন। এক সপ্তাহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য পার্থক্য দেখতে পাবেন।

চিনির স্ক্রাব
সুগার স্ক্রাব হলো এমন একটি সমাধান যা ত্বককে এক্সফোলিয়েট করার জন্য বিস্ময়করভাবে কাজ করে। এটি মৃত কোষ দূর করে, কোষের টার্নওভার বাড়ায়, ত্বকের সঞ্চালন উন্নত করে এবং প্রাকৃতিকভাবে চকচকে করে। সাদা এবং বাদামী চিনি আধা টেবিল চামচ করে নিন। এর সঙ্গে সামান্য পানি মেশান। মিশ্রণটি আপনার ত্বকে লাগিয়ে রাখুন দুই থেকে তিন মিনিট। এবার কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত একবার ঘুমাতে যাওয়ার আগে এই স্ক্রাব ব্যবহার করুন।

মধু
কোরিয়ানদের মতো গ্লাস স্কিন পেতে চাইলে আপনার ত্বকে মধু ব্যবহার করা উচিত। কারণ মধুতে আছে বিভিন্ন উপকারী উপাদান যা কেবল ত্বকের জন্যই নয় চুলের জন্যও উপকারী। খাঁটি মধু ব্যবহার করুন, যাতে পুষ্টি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বেশি। এটি আপনার ত্বককে ত্রুটিহীন এবং মসৃণ রাখতে সাহায্য করে। এক টেবিল চামচ মধুর সাথে এক চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে নিন। ঘন পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগান। ১৫-২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর পরিষ্কার পানিতে মুখ ধুয়ে নিন।

ফার্মেন্টেড রাইস ওয়াটার
ফার্মেন্টেড রাইস ওয়াটার বা চালের পানি রোদের কারণে সৃষ্ট ত্বকের ক্ষতি দূর করে এবং কোলাজেন গঠনে সহায়তা করে। যা ত্বককে মসৃণ এবং বলিরেখামুক্ত রাখে। কিছু চাল সেদ্ধ করে ছেঁকে নিন এবং পানি সংরক্ষণ করুন। পানিটুকু ঠান্ডা করে স্প্রে বোতলে নিন। আবার সারারাত পানিতে চাল ভিজিয়ে রেখেও পরদিন সকালে পানিটুকু ছেঁকে নিতে পারেন। এতে চাল সেদ্ধ করতে হবে না। এই দুই উপায়ের যেকোনো একটি বেছে নিন। এরপর সকালে ও রাতে ফেস স্প্রে হিসাবে ফার্মেন্টেড রাইস ওয়াটার ব্যবহার করুন। ব্যবহারের আগে এটি দুই-তিন দিন রেখে দিতে পারে।

আরও যা করবেন
গ্লাস স্কিন পেতে চাইলে এই উপায়গুলো মেনে চলার পাশাপাশি খেয়াল দিতে হবে জীবনযাপনের ধরনের দিকে। প্রতিদিনের একটি স্বাস্থ্যকর রুটিন তৈরি করুন এবং সেটি মেনে চলুন। যতক্ষণ দিনের আলো থাকে ততক্ষণ আপনার মুখ এবং শরীরকে ইউভি রশ্মি থেকে রক্ষা করতে সানস্ক্রিন, টুপি এবং স্কার্ফ ব্যবহার করুন। আপনার ত্বকের যত্নের রুটিনে হাইড্রেশনকে অগ্রাধিকার দিন। প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করুন এবং পানিসমৃদ্ধ শাকসবজি ও ফলমূল খান।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »

Translate »