মা ও মেয়েকে কুপিয়ে খুন, গ্রেপ্তার ৩


বাংলাদেশের কণ্ঠ ডেস্ক প্রকাশের সময় : অগাস্ট ১২, ২০২৩, ৬:৫৮ অপরাহ্ন /
মা ও মেয়েকে কুপিয়ে খুন, গ্রেপ্তার ৩

আজকালের কন্ঠ ডেস্ক : বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায় মা ও মেয়েকে কুপিয়ে খুনের ঘটনায় আপন তিন ভাইকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১২ আগস্ট) পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।গত শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, শরণখোলা উপজেলার পশ্চিম রাজাপুর গ্রামের আব্দুস সামাদ হাওলাদারের ছেলে মনির হাওলাদার (৪৫), নেহারুল হাওলাদার (৪৮) ও মিলন হাওলাদার (৪০)।

নিহতরা হলেন, উপজেলার উত্তর রাজাপুর গ্রামের আবু জাফরের স্ত্রী এবং ধানসাগর এলাকার মো. আব্দুল হোসেন খকিফার মেয়ে পাপিয়া আক্তার। নিহত শিশু জেনি পাপিয়া-আবু জাফর দম্পতির মেয়ে। তাদের আরও একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

বাগেরহাট জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের প্রধান পরিদর্শক বাবুল আক্তার বলেন, মা-মেয়ে হত্যা মামলায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা আপন তিন ভাই। গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ওই নারীর সঙ্গে তার স্বামীর পারিবারিক কলহ ছিল। তার স্বামীও এজাহার নামীয় আসামি। সে বিষয়টিও আমরা তদন্ত করছি।

পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। হত্যার শিকার পাপিয়ার ভাই আল আমিন খলিফা বাদী হয়ে পাপিয়ার স্বামী আবু জাফরসহ সাতজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও চারজনকে আসামি করে শরণখোলা থানায় মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১১ আগস্ট) সন্ধ্যায় দুর্বৃত্তের ধারালো অস্ত্রের কোপে মা-মেয়ে দুজনই গুরুতর আহত হয়। পরে আহত অবস্থায় শিশু ছাওদা জেনিকে তার চাচা আবু তালেব টুকুর বাড়িতে নেওয়া হয় এবং সেখানেই সে মারা যায়। পাপিয়া আক্তারকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পাপিয়ার পরিবারের দাবি, স্বামীর সঙ্গে বিরোধ থাকায় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।