কুমিল্লায় অ্যাপের ফাঁদে সর্বসান্ত মানুষ


বাংলাদেশের কণ্ঠ ডেস্ক প্রকাশের সময় : অগাস্ট ১৬, ২০২৩, ৫:৫১ অপরাহ্ন /
কুমিল্লায় অ্যাপের ফাঁদে সর্বসান্ত মানুষ

নিজস্ব সংবাদদাতা: কুমিল্লায় ‘এমটিএফই’ নামে এক বিদেশি অ্যাপের খপ্পরে ফেলে শতাধিক যুবকের কাছ থেকে প্রায় তিন কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সংঘবদ্ধ একটি প্রতারকচক্র। এক লাখ টাকা বিনিয়োগ করলে প্রতিদিন দুই হাজার টাকা করে লাভ পাওয়া যাবে এবং ষাট হাজার টাকা বিনিয়োগ প্রতিদিন পনেরশত টাকা লাভ দিবে এমন লোভনীয় প্রস্তাবের ফাঁদে পা দিয়ে প্রতারিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

সক্রিয় প্রতারকচক্রটি শুরুতে গ্রাহকদের ষাট হাজার অথবা এক লক্ষ টাকায় এমটিএফই প্ল্যাটফরমে খুলে দিচ্ছে একটি অ্যাকাউন্ট। আর প্রতিটি অ্যাকাউন্টে ‘রেফার’ হিসাবে ব্যবহার করছে প্রতারক চক্রের সদস্যদের হিসাব নম্বর।

কিন্তু গত ৭ আগস্ট থেকে একাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন করতে পারছে না। এখন প্রতারিত হয়ে শত শত যুবক আজ দিশাহারা অবস্থা। সরেজমিনে দেখা যায়, বেশিরভাগ তরুন বয়সী শিক্ষাথী ও ব্যবসায়ী প্রতারণার স্বীকার হয়েছে। শহরের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে অধ্যয়নরত শিক্ষাথী আল্লাউদ্দিন জনি বলেন, ”টিউশনি করে কষ্টর্জিত জমানো ষাট হাজার টাকা বিনিয়োগ করে , আমি মানসিক ও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন তরুন ব্যবসায়ী বলেন, ‘আমি ৩ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে, এখন দিশেহারা। পরিবার থেকে বিছিন্ন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি ‘ভুক্তভোগীরা জানান, এই অ্যাপের স্থানীয় টিম লিডারদের সঙ্গে বারবার আলোচনা করেও বিনিয়োগের টাকার কোনো হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। উলটো টিম লিডাররা বলছে, সব ব্যবসায় লাভ-লোকসান রয়েছে। তাই বলে থেমে থাকা যাবে না। আরও বেশি করে নতুন কোন আ্যাপে বিনিয়োগ করতে হবে লোকসান পুষিয়ে নেওয়ার জন্য।

উল্লেখ্য গত ১০ই আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক একটি নোটিশে এই ধরনের হুন্ডি, অনলাইন ভিত্তিক গ্যাম্বলিং,গেমিং, বেটিং,ফরেক্স এবং এিপ্টো ট্রেডিং এ্যাপ সমূহের মাধ্যমে কৌশলে প্রতারনা করে অর্থ পাচারের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে সংশ্লিষ্ট আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ও বিএফআইইউ একযোগে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে।

স্থানীয় সচেতন গণ্যমান্য ব্যক্তিগন ও ভুক্তভোগীরা এই প্রতারকদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার ও আইনের আওতায় নিয়ে এসে, টাকা উদ্ধারে প্রশাসনকে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ করেন।