হোটেলে রুম ভাড়া নিয়ে রমজানে ডাকাতির পরিকল্পনা


বাংলাদেশের কণ্ঠ ডেস্ক প্রকাশের সময় : মার্চ ১৪, ২০২৪, ৭:১৮ অপরাহ্ন /
হোটেলে রুম ভাড়া নিয়ে রমজানে ডাকাতির পরিকল্পনা

মতিঝিল ফাইন্যান্স টাওয়ারের ল ফার্ম ও মাল্টি অ্যাসোসিয়েশনের জেনারেল ম্যানেজার শাহাদাত হোসেন। ক্লায়েন্টের ৭১ লাখ টাকা ব্যাংকে জমা দেওয়ার জন্য গত ৬ মার্চ সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে বাসা থেকে বের হন। রিকশাযোগে মতিঝিল ইসলামী ব্যাংকের লোকাল ব্রাঞ্চে যাওয়ার পথে ফকিরাপুলের ক্যাফে সুগন্ধা হোটেলের সামনে পৌঁছালে তাকে আটকানো হয়।

ডিবি পুলিশের জ্যাকেট পরা ওয়াকিটকি, স্প্রিং লাঠি ও হ্যান্ডকাপসহ ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে দুজন ভুক্তভোগীকে রিকশা থেকে নামিয়ে গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে চলে যায়।

গাড়িতে তুলে গামছা দিয়ে চোখ-মুখ ও বেল্ট খুলে হাত বেঁধে ফেলে অপহরণকারীরা। এক পর্যায়ে জোরপূর্বক কাঁধে থাকা কালো ব্যাগ ভর্তি ৭১ লাখ টাকা ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ নিয়ে নেয়।

ঘটনার দুই দিন পর রাজধানীর মতিঝিল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী শাহাদাত হোসেন। ওই মামলা তদন্ত করতে গিয়ে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সংঘবদ্ধ একটি ডাকাত দলের সন্ধান পায় ডিবি-সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম (উত্তর) বিভাগের ফাইন্যান্সিয়াল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম।

এরপর রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে রাজধানীতে সংঘবদ্ধ ডাকাত ও ছিনতাইকারী চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার হওয়া অভিযুক্তরা হলেন, দ্বীন ইসলাম, মো. সবুজ, সিফাত ইসলাম রাজী, মাজারুল ইসলাম, আব্দুস সালাম হাওলাদার। এ সময় লুট করে নেওয়া ১২ লাখ টাকা, ৫টি মোবাইল, ডিবি জ্যাকেট ১টি, ১টি হ্যান্ডকাপ, একটি খেলনা পিস্তল, স্প্রিং স্টিক, ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি মাইক্রোবাস, ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি মোটরসাইকেল ও পুলিশ লেখা নেভি ব্লু ব্যাগ উদ্ধার করা হয়।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট ডিবি-সাইবারের ফাইন্যান্সিয়াল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম কর্মকর্তারা বলছেন, দীর্ঘদিন ধরেই এই চক্রটি রাজধানীতে সক্রিয়। পুরো রমজানে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতির পরিকল্পনা ছিল তাদের। এ জন্য তারা টিম সাজাচ্ছিল, পরিকল্পনা করে রাজধানীর একটি হোটেলও ভাড়া করেছিল।